ঢাকা

কৃষি মার্কেটে অগ্নিকাণ্ডে কর্মহীন দোকান কর্মচারীদের মাঝে আর্থিক সহায়তা প্রাদান

বিপদে-আপদে জনগণের পাশে দাঁড়ানো রাষ্ট্রের দায়িত্ব : এডভোকেট আতিকুর রহমান

বাংলাদেশ শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আতিকুর রহমান বলেছেন, রাষ্ট্রের দায়িত্ব হচ্ছে যেকোনো বিপদ-আপদ থেকে জনগণকে রক্ষা করার পাশাপাশি তাদের পাশে দাঁড়ানো। যদিও যারা রাষ্ট্র ক্ষমতায় আছেন, তাদেরকে এখন পর্যন্ত কৃষি মার্কেটের অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়াতে দৃশ্যমান কোনো পদক্ষেপ নিতে দেখা যায়নি।

তিনি আজ বাংলাদেশ শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের উদ্যোগে মোহাম্মদপুর কৃষি মার্কেটে অগ্নিকাণ্ডে কর্মহীন দোকান কর্মচারীদের আর্থিক সহায়তা প্রদান কালে এসব কথা বলেন।

এডভোকেট আতিকুর রহমান বলেন, দেশে একেরপর এক বড়ো মার্কেটগুলো ধারাবাহিক দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে। প্রসিদ্ধ মার্কেটগুলো আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে যাচ্ছে। বঙ্গবাজার, নিউ মার্কেট এবং সর্বশেষ কৃষি মার্কেট মুহূর্তের আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। অগ্নিকাণ্ডের কারণে ব্যবসায়িক সম্ভাবনার জায়গা শেষ হয়ে যাচ্ছে। এসব দুর্ঘটনার হাত রক্ষা পেতে সরকারকে পদক্ষেপ নিতে হবে। দুর্ঘটনা সংঘটিত হওয়ার পর পদক্ষেপ নেওয়ার চেয়ে দুর্ঘটনা সংঘটিত হওয়ার কারণ উদঘাটন করে মানুষকে বিপদ রক্ষা করতে হবে। ফলে ব্যবসায়ীরা স্বাধীন ও আস্থার সাথে ব্যবসা-বাণিজ্য করার সুযোগ পাবে। উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা নিয়ে ব্যবসা-বাণিজ্য করা যায় না।

তিনি বলেন, বিপদ-আপদ আল্লাহর পক্ষ থেকে আসে। আজকে যারা বিপদগ্রস্ত তাদেরকে ধৈর্যের সাথে পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে হবে। ক্ষতিগ্রস্তদের অস্থির না হয়ে আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের ওপর ভরসা করতে হবে। আমাদের আজকের এই দুর্ঘটনায় ব্যবসায়ীরা যেমন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন ঠিক তেমনিভাবে এখানে কর্মরত দোকান-কর্মচারীরা কর্মহীন হয়ে পড়েছে। এই সকল শ্রমজীবী মানুষরা পরিবার-পরিজন নিয়ে অসহায় হয়ে পড়েছে। আমরা শ্রমিকরা কল্যাণের পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্ত ভাইদের সহানুভ‚তি প্রকাশের পাশাপাশি আমাদের সীমিত সামর্থ্য নিয়ে তাদের পাশে দাঁড়াতে ছুটে এসেছি। আমরা মনে করি এটি আমাদের সামাজিক দায়িত্ব ও কর্তব্যের অংশ। আমাদের প্রত্যাশা সমাজের বিত্তবান মানুষরা এই অসহায় মানুষদের কষ্ট লাঘবে এগিয়ে আসবে।

তিনি আরও বলেন, শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশন ইসলামী আদর্শকে অনুসরণ করে যাচ্ছে। আল্লাহর রাসুল (সা.) বলেছেন, তোমরা শ্রমিকের ঘাম শুকানোর পূর্বেই তার মজুরি পরিশোধ করে দাও। তোমরা যা খাও, শ্রমিকদের তাই খেতে দাও। তোমরা যা পরিধান করো, তাদের তাই পরিধান করাও। শ্রমিকদের ভালোবাসো, তাদের অসংখ্যবার ক্ষমা করে দাও। আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি রাসুলে করিম (সা.) আদর্শে শ্রমজীবী মানুষের কাঙ্ক্ষিত মুক্তি নিহিত রয়েছে।

আরও পড়ুনঃ  ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সুবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখলেন বিএনপি ও জামায়াত নেতারা

সংগঠনের ঢাকা মহানগরী উত্তরের সভাপতি মো. মহিব্বুল্লাহ-এর সঞ্চালনায় এতে আরও উপস্থিত ছিলেন ফেডারেশনের কোষাধ্যক্ষ আজহারুল ইসলাম, কর্মসংস্থান বিষয়ক সম্পাদক কাজী আবুল বাশার, সাহায্য-পুনর্বাসন সম্পাদক আবুল হাশেম, মহানগরী উত্তরের সহ-সভাপতি মিজানুল হক, মোহাম্মদপুর অঞ্চলের সহকারী পরিচালক মুশতাক আহমদ প্রমুখ।

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *