বাংলাদেশ

আসছে নির্বাচন, চোরাইপথে ঢুকছে অস্ত্র

সব কিছু ঠিক থাকলে আগামী ডিসেম্বর কিংবা ২০২৪ সালের জানুয়ারিতে অনুষ্ঠিত হবে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। আর এই নির্বাচনকে সামনে রেখে চোরাইপথে দেশে অস্ত্রের চালান ঢুকছে। পরবর্তীতে বিভিন্ন এজেন্টের মাধ্যমে এসব অস্ত্র দেশের বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, সীমান্ত এলাকা দিয়ে পার্শ্ববর্তী দেশ থেকে অবৈধ পথে এসব অস্ত্র আসছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি করা হয়েছে। কেউই নজরদারির বাইরে নয়। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে সমন্বয় করে যৌথ অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে।

এদিকে, গত ২০ আগস্ট রাজধানীতে ছাত্রদলের ৬ নেতাকে অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পুলিশের দাবি, গ্রেপ্তারকৃতরা জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদের নির্দেশে দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে অস্ত্র মজুত করছে।

ঢাকা মহানগর পুলিশের যুগ্ম পুলিশ কমিশনার খোন্দকার নুরুন্নবী জানান, দেশে সহিংসতা ও অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরি করতে ছাত্রদলের নেতারা অস্ত্র সংগ্রহ করছে। যাদের কাছ থেকে এসব অস্ত্র কেনা হয়েছে তাদেরও শনাক্ত করা হয়েছে। তাদের ধরতে কাজ চলছে।

অস্ত্র সংগ্রহের অভিযোগের বিষয়ে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, অস্ত্র জমার বিষয়ে ডিবির বক্তব্য বানোয়াট ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। এমন কথা বলে তারা প্রেক্ষাপট তৈরি করছে। পরে নিজেরা এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি করে আমাদের ওপর দোষ চাপাবে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সহিংসতার লক্ষ্যে বিভিন্ন মহল অবৈধ দেশি-বিদেশি অস্ত্র মজুদ করছে। সীমান্তবর্তী জেলাগুলোর চোরাইপথে এসব অস্ত্র আসছে। নির্বাচনের আগে আরও আসবে। তাই এখনই যদি এগুলো রোধ করা না যায় তাহলে নির্বাচন ঘিরে দেশে সহিংসতা ও অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরি হবে।

Follow us in Facebook: Renesa Times

আরও পড়ুনঃ  নতুন রাজনৈতিক দল হিসেবে নিবন্ধন পেল বিএসপি ও বিএনএম
Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *