আন্তর্জাতিক

হিন্দু মেয়েকে বিয়ে করায় মুসলিম বাবা-মাকে পিটিয়ে হত্যা

ভারতের উত্তরপ্রদেশের সীতাপুরে এক ব্যক্তি ও তার স্ত্রীকে লোহার রড এবং লাঠি দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করেছে প্রতিবেশীরা। এই মামলায় তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, হত্যাকাণ্ডটি অভিযুক্তের ছেলের সনাতন ধর্মাবলম্বী এক মেয়ের সাথে প্রেম করে পালিয়ে যাওয়াকে কেন্দ্র করে হয়েছে।

সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে।

শুক্রবার (১৮ আগস্ট) হামলায় ঘটনাস্থলেই আব্বাস ও তার স্ত্রী কামরুল নেসা দম্পতি মারা যান এবং আসামিরা ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়।

সীতাপুরের পুলিশ সুপার চক্রেশ মিশ্র জানিয়েছেন, কয়েক বছর আগে আব্বাসের ছেলে পাশের বাড়ির এক মেয়ের সঙ্গে পালিয়ে গিয়েছিল। এ ঘটনায় মামলা দায়ের করে আব্বাসের ছেলেকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ জানায়, আব্বাসের ছেলে কয়েকদিন আগে জেল থেকে ছাড়া পেলে পরিবারের কয়েকজন সদস্য ওই দম্পতির ওপর হামলার পরিকল্পনা করে।

গ্রামবাসীর মতে, নিহত দম্পতির ছেলে ও শওকত রামপালের মেয়ে রুবির মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। ২০২০ সালে রুবিকে অপহরণ করে নিয়ে যায় শওকত। ওই সময় রুবি নাবালক ছিল এবং মামলা দায়েরের পর পুলিশ শওকতকে জেল হাজতে পাঠায়। পরবর্তীতে শওকত আবার রুবিকে নিয়ে যায় এবং জুন মাসে তাকে বিয়ে করেন।

পুলিশ বলছে, এই ঘটনায় প্রধান তিন আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে এবং আরও দুজনের খোঁজ চলছে।

আরও পড়ুনঃ  স্ত্রী ও মেয়েকে হত্যার পর আত্মহত্যা করলেন সাবেক সেনা কর্মকর্তা
Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *