তথ্য ও প্রযুক্তি

বিরোধী দলের উপর নজর রাখতে বাংলাদেশ সরকারের রাশিয়ান হ্যাকার ভাড়া

বাংলাদেশ সরকার বিদেশে বসবাসরত বিরোধী ব্যক্তিদের হ্যাকিং ও বিভ্রান্তিমূলক প্রচারণা চালানোর পরিকল্পনা করছে।

নির্ভরযোগ্য সূত্রের বরাতে জানা গেছে বিদেশে বসবাসরত – বাংলাদেশী/বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত রাজনীতিবিদ, সাবেক আমলা, সাবেক সামরিক কর্মকর্তা, ইউটিউবার, লেখক, সাংবাদিক, অধিকারকর্মী, কয়েকটি বাংলাদেশী দূতাবাসের কর্মকর্তা এবং নির্দিষ্ট কিছু ব্যক্তির – সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম একাউন্ট, ইমেইল, ব্যবহৃত বিভিন্ন ডিভাইস (মোবাইল, পিসি, ল্যাপটপ ইত্যাদি)’তে অনুপ্রবেশ (হ্যাক) করার উদ্দেশ্যে সম্প্রতি বাংলাদেশের ন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন মনিটরিং সেন্টার (এনটিএমসি) কয়েকজন রাশিয়ান হ্যাকার নিয়োগ করেছে।

এছাড়াও অত্যাধুনিক এআই প্রযুক্তির ব্যবহার করে উল্লিখিত ব্যক্তিদের জড়িয়ে বিভিন্ন ধরনের বিভ্রান্তিমূলক প্রচারনার উদ্দেশ্যে ভিডিও-অডিও নির্মাণ কাজ চলছে।

এই পুরো প্রজেক্টের তদারকি করছেন এনটিএমসি’র মহাপরিচালক। এবং এই প্রকল্প বাস্তবায়নে তাকে বেশ ভালো অংকের বাজেটও দেয়া হয়েছে।

যারা এ ধরনের হামলার টার্গেট তারা সম্ভাব্য যে কোন ধরনের অনুপ্রবেশ রোধ করতে টু-স্টেপ অথেনটিকেশন বা দুই স্তরের নিরাপত্তার পাশাপাশি ডিজিটাল সিকিউরিটি কি ব্যবহার শুরু করতে পারেন। এবং আপনি যে দেশেই অবস্থান করেন না কেন, ভিপিএন ব্যবহার শুরু করুন। আপনার ফোনে কোন ধরনের স্পাইওয়্যার আছে কিনা তা চেক করতে certoantispy ব্যবহার করতে পারেন, নিচে বিস্তারিত দেয়া আছে।

ডিপফেক বা এআই ম্যানিপুলেশন সনাক্তে সহায়ক কিছু প্রবন্ধও দেয়া হলো। নিরাপদ থাকুন।

বিস্তারিত
সূত্র: জুলকারনাইন সায়ের

আরও পড়ুনঃ  ভারতের ৪'শ সরকারি-বেসরকারি ওয়েবসাইটের দখল নিয়েছে বাংলাদেশীয় হ্যাকার দল
Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *